চকরিয়ায় উন্নয়ন মেলার সমাপনী অনুষ্ঠান উন্নয়ন সেবা খাতে প্রথম চকরিয়া পৌরসভা ও ভূমি অফিস

চট্টগ্রাম সারাদেশ

চকরিয়া (কক্সবাজার ) প্রতিনিধি ঃ
কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে তিনদিন ব্যাপী চতুর্থ উন্নয়ন মেলা শনিবার বিজয়ী সরকারি-বেসরকারী ৭০টি স্টল ও বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণের মধ্যদিয়ে সমাপনী অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে। উপজেলা পরিষদ লাগোয়া মগবাজারস্থ শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার থেকে বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে শুরু হয় উন্নয়ন মেলা। শুরু থেকে সমাপনী পর্যন্ত প্রতিদিন বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কোমলমতি শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে সব বয়সি নানা শ্রেণী পেশার নারী-পুরুষেরা উপস্থিতি ছিল দেখার মতো। প্রতিদিন বিকালে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহনে বির্তক ও কুইজ প্রতিযোগিতা চলে। সন্ধ্যায় আয়োজন করা হয় আলোচনা সভা। এরপর শুরু হয় সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। তারকা শিল্পীরা প্রতিদিন গান পরিবেশন করে মঞ্চ মাতিয়ে রাখেন।
এবারের মেলায় সকল স্টলে সরকারি-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে তুলে ধরা হয়েছে সরকারের উন্নয়ন সফলতার কর্মকান্ড। বাদ পড়েনি চকরিয়া প্রেসক্লাবও। চকরিয়ার ইতিহাসে প্রথমবারের মতো এবার উন্নয়ন মেলায় স্টল দিয়েছেন চকরিয়া প্রেসক্লাব। উন্নয়ন কাজের অগ্রগতি তুলে ধরে বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত প্রতিবেদন তুলে ধরেছে চকরিয়া প্রেসক্লাবের এই স্টল।
মেলার সমাপনী দিনে চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরউদ্দিন মুহাম্মদ শিবলী নোমানের সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম।
চকরিয়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আনোয়ারুল কাদের এর উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের নারী ভাইস চেয়ারম্যান সাফিয়া বেগম শম্পা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা ইউপি চেয়ারম্যান সমিতির সভাপতি গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, চকরিয়া পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরী, উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভুমি) খন্দকার ইখতিয়ার উদ্দিন আরাফাত, চকরিয়া থানার ওসি বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী, চকরিয়া কলেজের অধ্যক্ষ একেএম গিয়াস উদ্দিন।
এবারের মেলায় স্থানীয় সরকার বিভাগে প্রথম হয়েছেন চকরিয়া পৌরসভা। মেলার স্টলে জনগনের কল্যানে উন্নয়ন অগ্রগতি সম্পাদন ও সেবা কার্যক্রম সম্পর্কে বিষদ বিবরণ তুলে ধরেছেন তাঁরা। অনুষ্ঠানে অতিথির কাছ থেকে পুরস্কার ও ক্রেস্ট গ্রহন করেন চকরিয়া পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আলমগীর চৌধুরী এবং সকল কাউন্সিলর-কর্মকর্তা, কর্মচারী। একই বিভাগে দ্বিতীয় হয়েছেন ফাসিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদ। পুরস্কার ক্রেস্ট গ্রহন করেন ইউপি চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী।
অপরদিকে সরকারি সেবাখাতে প্রথম হয়েছেন চকরিয়া উপজেলা ভুমি অফিস। উপজেলা সহকারি কমিশনার খন্দকার ইখতিয়ার উদ্দিন আরাফাত ও অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারী অনুষ্ঠানে পুরস্কার ও ক্রেস্ট গ্রহন করেন। সরকারি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে কৃষি নির্ভর স্টল তৈরী ও নৌকা প্রতীকে তাজা সবজির ফসরা সাজিয়ে দ্বিতীয় পুরস্কার পেয়েছেন চকরিয়া উপজেলা কৃষি বিভাগ। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো.আতিক উল্লাহ কুতুবী অনুষ্ঠানে অতিথির কাছ থেকে পুরস্কার ও ক্রেস্ট গ্রহন করেন। একই ক্যাটাগরিতে যৌথভাবে ততৃীয় হয়েছেন উপজেলা প্রাণী সম্পদ বিভাগ ও পল্লী বিদ্যুত বিভাগ। অতিথিদের কাছ থেকে পুরস্কার ও ক্রেস্ট গ্রহন করেন উপজেলা প্রাণী সম্পদ বিভাগের ভেটেরিনারী সার্জন ডা.ফেরদৌসী দিপ্তী ও পল্লীবিদ্যুত সমিতির এজিএম।
অন্যদিকে প্রথমবারের মতো মেলায় অংশনেয়া চকরিয়া প্রেসক্লাব সরকারি সব ধরণের উন্নয়ন সফলতার প্রতিবেদন সংবাদপত্রে তুলে ধরেন। প্রকাশিত সংবাদপত্রের কাটিং গুরুত্ব সহকারে সংযুক্ত করেন স্টলে। তা দেখে অভিভুত হন প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি থেকে শুরু করে সবশ্রেণীর নাগরিক। ব্যতিক্রমী এই আয়োজনের জন্য উপজেলা প্রশাসন চকরিয়া প্রেসক্লাবকে পুরস্কৃত করেছেন। অনুষ্ঠানে উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ জাফর আলম ও ইউএনও নুরউদ্দিন মুহাম্মদ শিবলী নোমানের কাছ থেকে পুরস্কার ও ক্রেস্ট গ্রহন করেন চকরিয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি এম জাহেদ চৌধুরী এবং প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মনছুর আলম।
একইভাবে মেলায় অংশনেয়া সরকারি-বেসরকারী ৭০টি স্টল ও বিভিন্ন ইভেন্টে বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার ও ক্রেস্ট বিতরণ করেন অতিথিবৃন্দ।
সমাপনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য আমিনুর রশীদ দুলাল, মাতামুহুরী আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাহারবিলের চেয়ারম্যান মহসিন বাবুল, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি বাবু এমআর চৌধুরী, চিরিঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান জসীম উদ্দিন, সুরাজুপুর-মানিকপুর ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আজিমুল হক আজিম, চকরিয়া কলেজের শিক্ষক অধ্যাপক পদ্মলোচন বড়–য়া, চকরিয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো.আতিক উল্লাহ, উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মো.সাইফুর রহমান, কক্সবাজার পাউবোর উপবিভাগীয় প্রকৌশলী ইমান আলী, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জোবায়ের হাসান, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি অধ্যাপক মোসলেহ উদ্দিন মানিক, চকরিয়া সড়ক বিভাগের সহকারি প্রকৌশলী আবু এহেছান মোহাম্মদ আজিজুল মোস্তফা, উপজেলা প্রকৌশলী কমল কান্তি পাল, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী কামাল হোসেন, উপজেলা প্রাণী সম্পদ বিভাগের ভেটেরিনারী সার্জন ডা.ফেরদৌসী দিপ্তী, মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগের একাডেমিক সুপারভাইজার রতন বিশ^াস, ডুলাহাজারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো.নুরুল আমিন, কাকারা ইউপি চেয়ারম্যান শওকত ওসমান, বরইতলী ইউপি চেয়ারম্যান জালাল আহমদ সিকদার, কৈয়ারবিল ইউপি চেয়ারম্যান মক্কী ইকবাল হোসেন, লক্ষ্যারচর ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তাফা কাইছার, ফাসিয়াখালী রেঞ্জ কর্মকর্তা মো.আবদুল মতিন, সাফারি পার্কের সহকারি তত্তাবধায়ক মাজহারুল ইসলাম চৌধুরী, ক্রেল প্রকল্পের উপজেলা সাইট অফিসার মো.আবদুল কাইয়ুম, চকরিয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি এম জাহেদ চৌধুরী, কার্যকরী সভাপতি ছোটন কান্তি নাথ, সিনিয়র সহ-সভাপতি এস এম হানিফ, সহ-সভাপতি রফিক আহমদ, জহিরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মিজবাউল হক, যুগ্ম সম্পাদক মুকুল কান্তি দাশ ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনজুর আলম, অর্থ সম্পাদক এম জিয়াবুল হক, দপ্তর সম্পাদক সাইফুল ইসলাম খোকন, প্রচার-প্রকাশনা সম্পাদক এম মনছুর আলম, তথ্য-প্রযুক্তি সম্পাদক মোহাম্মদ উললাহ, ক্রীড়া সম্পাদক বাপ্পি শাহরিয়ার, নির্বাহী সদস্য এম আর মাহমুদ, নির্বাহী সদস্য এ এম ওমর আলী, নির্বাহী সদস্য এ কে এম ইকবাল ফারুক ও জিয়াউদ্দিন ফারুক ।

শেয়ার করুন