কুষ্টিয়ায় বাল্য বিবাহ দেয়ার অভিযোগে পিতার কারাদন্ড

খুলনা সারাদেশ

জাহাঙ্গীর হোসেন জুয়েল কুষ্টিয়া প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে বাল্য বিবাহ দেয়ার অভিযোগে সাহাব উদ্দিন (৪৫) নামে মেয়ের পিতার কারাদন্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমান আদালত। রোববার দুপুর ২টায় এ কারাদন্ড দেয়া হয়।
ভ্রাম্যমান আদালত সূত্র জানায়, উপজেলার মথুরাপুর গ্রামের সাহাব উদ্দিন তার কিশোরী মেয়ে সম্পা খাতুন (১৫) এর জন্ম নিবন্ধন জাল করে বিবাহ দিচ্ছিলেন। বাল্য বিবাহের খবর পেয়ে দৌলতপুর মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রুবি আক্তারের নেতৃত্বে দৌলতপুর থানা পুলিশ মথুরাপুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে বাল্য বিবাহ বন্ধ করেন এবং মেয়ের পিতা সাহাব উদ্দিনকে আটক করে ভ্রাম্যমান আদালতে হাজির করেন।
ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ও দৌলতপুর সহকারী কমিশনার (ভূমি) জাহাঙ্গীর আলম উপস্থিত স্বাক্ষীদের স্বাক্ষ্য প্রমানের ভিত্তিতে বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭ এর ৮ ধারা এবং দন্ড বিধি ১৮৮ ধারা সরকারী আদেশ অমান্য করার অপরাধে সাহাব উদ্দিনকে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন। দন্ডিত সাহাব উদ্দিন একই গ্রামের মৃত নকিম উদ্দিন মালিথার ছেলে।

কুষ্টিয়ায় পাখি ভ্যানের ধাক্কায় শিশু নিহত

জাহাঙ্গীর হোসেন জুয়েল কুষ্টিয়া প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে পাখি ভ্যানের (ব্যাটারী চালিত রিকসা) ধাক্কায় এক শিশুপুত্র নিহত হয়েছে। নিহত শিশুর নাম মুস্তাকিম (৪)। সে উপজেলার ফুলবাড়ীয়া ইউনিয়নের গেট পাড়া গ্রামের মালয়েশিয়া প্রবাসী মুক্তার হোসেনের একমাত্র ছেলে।
জানা যায়, শনিবার বিকালে বাড়ির সামনের রাস্তায় মায়ের সঙ্গে খেলা করছিল মুস্তাকিম। এ সময় একটি যাত্রীবাহী পাখিভ্যান ওই রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিল। শিশুটি হঠাৎ রাস্তা অতিক্রম করতে গেলে ভ্যানটির সঙ্গে তার সজোরে ধাক্কা লাগে। আহত অবস্থায় শিশুটিকে তার স্বজনরা প্রথমে মিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে অবস্থার অবণতি হলে চিকিৎসক তাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে পাঠান। কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে যাওয়ার সময় পথিমধ্যে শনিবার রাতে শিশুটি মারা যায়।

কুষ্টিয়ায় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ ‘বিএনপি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল নয়
বলে আইন নিয়ে কথা বলে ’

জাহাঙ্গীর হোসেন জুয়েল কুষ্টিয়া প্রতিনিধি ॥ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ এমপি বলেছেন, মির্জা ফখরুলের স্মরণ থাকা উচিত যে ২০০৩ সালে আওয়ামী লীগের কর্মসূচীকে কেন্দ্র করে বিনা কারণে ৯০ হাজার নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছিল। গত দশ বছরেও বিএনপির ৯০ হাজার নেতা-কর্মীকে কারাগারে যেতে হয়েছে এমন কোন নজির নেই। এ সময় হানিফ প্রশ্ন ছুড়ে বলেন, বিএনপি রাজনৈতিক কর্মকান্ডের নাম করে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করছে। সে সমস্ত কর্মকান্ডের জন্য কি মামলা ও বিচার হবে না?
রোববার দুপুরে কুষ্টিয়া শহরের সৈয়দ মাছ-উদ রুমী কলেজ মাঠ প্রাঙ্গনে অভিভাবক ও সুধি সমাবেশ যোগ দেয়ার আগে “বিএনপিকে নির্বাচন থেকে সরিয়ে রাখার জন্য সরকার গায়েবী মামলা করছে” বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুলের এমন মন্তব্যের প্রেক্ষিতে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি হাজী রবিউল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক প্রকৌশলী ফারুক হোসেন, আতাউর রহমান আতাসহ অভিভাবক ও সুধিজনরা উপস্থিত ছিলেন
মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, আপরাধ করলে আইনের আওতায় এনে তার বিচার হবে এটাই স্বাভাবিক। বিএনপি যদি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল না হয় তাহলে তারা আইন নিয়ে কথা বলতেই পারে। বিএনপির কর্মকান্ড দেখে মনে হয় তাদের জন্য এমন একটা রাজত্ব তৈরি করা দরকার যেটাকে বলা হবে মগের মুল্লুক। যার যা খুশি করে যাবে কেউ কিছু বলতে পারবে না,কেউ কিছু করতে পারবে না। তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশে আইন সকলের জন্য সমান। অপরাধ যেই করুক সে যত বড়ই নেতা হোক তাকে আইনের আওতায় আনতেই হবে।

 

শেয়ার করুন