ধানের শীষের দূর্বার জোয়ার ঠেকানোর শক্তি সরকারের নেই: মওদুদ

latest news রাজনীতি
 অনলাইন ডেস্ক : বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, ধানের শীষের দূর্বার জোয়ার ঠেকানোর শক্তি সরকারের নেই। আজ সোমবার (২৬ নভেম্বর) দুপুর ১টায় নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে শোডাউন শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে তিনি এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, শুধু বিরোধীদলকে নয়, সর্বস্তরের মানুষের উপর চালানো হয়েছে নির্মম অত্যাচার এবং নির্যাতন। এখানে আমার হাজার হাজার কর্মীরা, এমন কেউ নেই যার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেওয়া হয় নাই, যার বিরুদ্ধে পুলিশ পরোয়ানা জারি হয় নাই, যার বাড়িতে পুলিশ হানা দেয় নাই। এটা শুধু মাত্র সরকারের মদদ করার জন্য। এক সময় এ নির্বাচনী এলাকা অত্যন্ত সুনামের এলাকা ছিল। এখানে রাজনৈতিক চর্চা এবং সংস্কৃতির একটা মাত্রা ছিল। গত ৫বছরে সেটা চূর্ণ-বিচূর্ণ করে দেওয়া হয়েছে। নির্বাচন আসন্ন, আমার অনেক কিছু বলার আছে। শুধু এই টুকু বলবো এই আসনে আমরা শান্তিপূর্ণ ভাবে নির্বাচনের কাজ সম্পন্ন করবো।

মওদুদ বলেন, আজ যে স্বতঃস্ফূর্ততা দেখলাম সকল স্তরের মানুষের মধ্যে তাতে আমার বদ্ধমূল ধারণা হয়েছে, আগামী নির্বাচনে এই এলাকাবাসী তাদের উপর যে অত্যাচর নির্যাতন, তাদের সন্তানদের উপর, বিষয় সম্পত্তির উপর, তাদের চাকুরীর উপর, তার প্রতি উত্তর এ এলাকার মানুষ আগামী নির্বাচনে দেবে। এবং ধানের শীষের জোয়ারে ইঙ্গিত আজকে পাওয়া গেছে। এই জোয়ারকে অব্যাহত রাখতে হবে ধানের শীষের প্রতি, বেগম খালেদা জিয়ার প্রতি।

মওদুদ আরও বলেন, আমাদের যে দাবি সে দাবি এখন পূরণ হতে যাচ্ছে তা হল এই গণতন্ত্রের মুক্তি, বেগম জিয়ার মুক্তি। আমার ভোট আমি দেব লড়াই করে ভোট দেব। কারো সাধ্য নেই ভোটারদের ভোট কেন্দ্রে আসা থেকে বিরত রাখে। কারণ এবার দেশের নারী পুরুষ অবলীলাক্রমে তাদের ভোটের অধিকার প্রয়োগ করবে।

তিনি বলেন, যতই কলা-কৌশল করা হোক না কেন যতই ষড়যন্ত্র করা হোক না কেন, যত রকমের ফন্দি ফিকির করা হোক না কেন মানুষের ধানের শীষের দূর্বার জোয়ার ঠেকানোর শক্তি সরকারের নেই। আগামী ৩০ ডিসেম্বর মানুষ এর জবাব দেবে। এ দেশে একটি ভোটের বিল্পব ঘটবে। আমার ভাইয়েরা বোনেরা গত দশ বছরে এই সরকারের অপশাসন কু-শাসন দূর্বিচার অবিচার আইনের শাসনের পরির্বতে দলীয় শাসন, বিচার বিভাগের স্বাধীনতা হরণ মানুষের ভোটের অধিকার হরণ করেছে।

নির্বাচনের পরে আমরা দেশের সভ্যতা পিরিয়ে আনবো, গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনবো। এবং একটি সত্যিকার অর্থে যে রাজনৈতিক গণতান্ত্রিক চর্চা সেটা আমরা প্রতিস্থাপন করবো।

এ সময় উপস্থিত কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি হাজী আবদুল হাই সেলিম, পৌর বিএনপির সভাপতি কামাল উদ্দিন চৌধুরী, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নুরুল আলম সিকদার, উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, পৌর যুবদলের সভাপভাপতি শওকত হোসেন সগির প্রমূখ।

শেয়ার করুন