বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহকে মন্ত্রী করার দাবী বরিশালবাসী

বরিশাল সারাদেশ

রাহাদ সুমন,বিশেষ প্রতিনিধি॥
মহা বিজয় অর্জন করা আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটের নতুন সরকারের মন্ত্রী পরিষদে এবার জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাগ্নে বরিশাল জেলা আ’লীগের সভাপতি সিংহ পুরুষ খ্যাত জাতীয় নেতা আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ এমপিকে মন্ত্রী হিসেবে দেখতে চায় আ’লীগ নেতা-কর্মী-সমর্থক ও শুভানুধ্যায়ী সহ গোটা বরিশাল বাসী। দুঃসময়ের ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতা পার্বত্য শান্তি চুক্তির প্রণেতা আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ তার মেধা.মনন, প্রজ্ঞা ও রাজনৈতিক দূরদর্শিতা দিয়ে আ’লীগকে বরিশাল সহ গোটা দক্ষিনাঞ্চলে শক্তিশালী ও সুদৃঢ় ভিত্তির ওপর দাঁড় করিয়ে এক অপ্রতিদ্বন্ধী রাজনৈতিক দলে রূপান্তর করেছেন। তার নেতৃত্বে আ’লীগ নেতা-কর্মীদের সাংগঠনিক তৎপরতায় এ অঞ্চলে বিএনপি-জামায়াত’র নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট নিস্প্রভ হয়ে পড়েছে। ফলে গোপালগঞ্জের মতো বরিশালও আওয়ামী লীগের শক্ত ঘাঁটিতে পরিণত হয়েছে। এক সময়ের বিএনপি অধ্যুষিত বরিশালকে আওয়ামী লীগের একচ্ছত্র ঘাঁটিতে রুপান্তরিত করতে তিনি মুল ভূমিকা পালণ করেন।বরিশালে জাতীয় সংসদ.সিটি কর্পোরেশন,জেলা পরিষদ,উপজেলা পরিষদ, পৌরসভা ও ইউপি নির্বাচনে আ’লীগ প্রার্থীদের বিজয়ী করতে পলিসি মেকারের ভূমিকায় অবর্তীণ হন বঙ্গবন্ধুর অবিনাশী আদর্শের এ নেতা। রাত-দিন একাকার করে তিনি আ’লীগকে সুসংগঠিত ও দলীয় প্রার্থীকে বিজয়ী করতে শহর থেকে গ্রাম আর গ্রাম থেকে গ্রামান্তর ছুঁটে বেড়িয়েছেন। তার দূরদর্শিতায় বরিশালের সব জনপ্রতিনিধি এখন আ’লীগের।নেতা-কর্মীদের সুখ-দুঃখের ভাগিদার আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ এমপি কালক্রমে নেতা-কর্মীদের আস্থা ও ভরসার প্রতিক এবং শেষ ঠিকানায় পরিণত হয়েছেন। শুধু বরিশালেই নয় জাতীয় রাজনীতিতে তার সরব উপস্থিতিও রয়েছে।১৯৯৭ সালে অশান্ত পার্বত্য অঞ্চলে শান্তির সুবাতাস বইয়ে দিতে ‘শান্তি চুক্তি’ সম্পাদনের মাধ্যমে তৎকালীণ জাতীয় সংসদের চীফ হুইপ অবয়বে মামা বঙ্গবন্ধুর প্রতিচ্ছবি আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ অগ্রণী ভূমিকা পালণ করে বঙ্গবন্ধু তনয়া প্রধানমন্ত্রী ও আ’লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার পাশাপাশি ইতিহাসের পাতায় নিজেরও নাম লিখিয়েছেন। সাম্প্রতিক সময়ে কুুচক্রিরা পার্বত্য এলাকা আবারও অশান্ত করার অপচেষ্টায় লিপ্ত হওয়ায় সেখানে শান্তির ধারা অব্যাহত রাখতে এবং পার্বত্য এলাকার উন্নয়নে ভূমিকা রাখার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অভিজ্ঞ রাজনীতিক আবুল হাসানাত আবদুল্লাহকে মন্ত্রীয় পদ মর্যাদায় পার্বত্য শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ কমিটির সভাপতির দায়িত্ব অর্পণ করেন।এছাড়া তিনি সততা,নিষ্ঠা ও সফলতার সঙ্গে স্থাণীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালণ করেন। ১৯৭১ সালে মামা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আহবানে সাড়া দিয়ে সেই সময়ের সাহসী টগবগে যুবক আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ স্বাধীনতার লাল সূর্য ছিনিয়ে আনতে বরিশাল অঞ্চলে মুজিব বাহিনী প্রধান হিসেবে মৃত্যুকে পায়ের ভৃত্য মনে করে সন্মূখ সমরে জীবন পণ লড়াই করে স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ বির্নিমানে অগ্রণী ভূমিকা পালণ করেন। স্বাধীনতার পর তরুন বয়সে তিনি বরিশাল পৌরসভা নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে শুধু “চমক” সৃষ্টিই করেননি তার রাজনৈতিক প্রজ্ঞারও পরিচয় দেন। সেই নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার মধ্য দিয়ে তখনই ফুঁটে ওঠে আজকে তার যে অবস্থান তার আগাম চিত্র। পরবর্তীতে পৌরসভার সফল ও জনপ্রিয় চেয়ারম্যান হিসেবে সেই থেকে উন্নয়ন কর্মকান্ডে নিজেকে সম্পৃক্ত করেন।বরিশাল-১(আগৈলঝাড়া-গৌরনদী) আসনে বিপুল ভোটে বার বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে গোটা বরিশাল অঞ্চলে উন্নয়নের রূপকার হিসেবে আর্বিভূত হয়েছেন। বরিশাল সিটি কর্পোরেশেন,বিভাগ,শিক্ষা বোর্ড,বিশ্ববিদ্যালয়,পায়রা গভীর সমুদ্র বন্দর প্রতিষ্ঠা,শেখ হাসিনা সেনানিবাস,দোয়ারিকা-শিকারপুর ও দপদপিয়া ব্রিজ নির্মাণ সহ বরিশালের সার্বিক উন্নয়নে তার অপরিসীম ভূমিকা রয়েছে। ফলে তিনি আপামর বরিশালবাসীর অভিভাবকের আসনে অধিষ্টিত হয়েছেন।১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট কালরাতে রক্তঝড়া অচিন্তনীয় বিয়োগান্তুক অধ্যায়ের শোকগাথাঁয় মামা জাতির জন্ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পরিবারের সঙ্গে বাবা তৎকালীণ কৃষিমন্ত্রী ও কৃষক কুলের নয়নের মনি আব্দুর রব সেরনিয়াবাত ও নিজের শিশু পুত্র সুকান্ত আব্দুলাহ সহ পরিবারের অনেক স্বজনকে হারান তিনি। সেদিন রাতে মৃত্যুর দুয়ার থেকে আল্লাহ রাব্বুল আল আমিনের অপার কৃপায় অলৌকিকভাবে আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ,বুলেটবিদ্ধ স্ত্রী শাহানারা আবদুল্লাহ ও তার কোলে থাকা সেই সময়ের দেড় বছরের শিশু পুত্র আজকের রাজনীতির “আইকন” ও নব নির্বাচিত বরিশাল সিটি মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ প্রাণে বেঁচে যান। ৭৫’র পর সেনাশাসক জিয়াউর রহমান, স্বৈরশাসক এরশাদ ও বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার আমলে (৯১-৯৬ ও ২০০১-২০০৬) মিথ্যা মামলা সহ নানা ভাবে আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ ও তার পরিবারকে হয়রানির শিকার হতে হয়। ১/১১’র সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার আমলেও ষড়যন্ত্রের শিকার হন তিনি। সদ্য অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আলহাজ¦ আবুল হাসানাত আবদুল্লাহর রাজনৈতিক প্রজ্ঞা ও দূরদর্শিতায় এ অঞ্চলে সবগুলো আসনে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট প্রার্থীরা বিপুল ভোটে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। দলীয় নেতা-কর্মী-সমর্থক সহ গোটা বরিশালবাসীর ঐকান্তিক বিশ^াস তাদের প্রাণের দাবী পূরণের মধ্য দিয়ে দেশরতœ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবার তার মন্ত্রী পরিষদের গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রনালয়ের দায়িত্ব অর্পণ করে মুজিব অন্তঃপ্রাণ আলহাজ¦ আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর দীর্ঘ ত্যাগ ও যোগ্যতার যথার্থ মূল্যায়ন করবেন।

শেয়ার করুন